করোনা প্রতিরোধে কুয়াকাটায় হোটেল-মোটেল বন্ধ ঘোষণা | | ajkerparibartan.com করোনা প্রতিরোধে কুয়াকাটায় হোটেল-মোটেল বন্ধ ঘোষণা – ajkerparibartan.com
করোনা প্রতিরোধে কুয়াকাটায় হোটেল-মোটেল বন্ধ ঘোষণা

2:20 pm , March 19, 2020

এনইউ সোহাগ, কলাপাড়া ॥ দেশ-বিদেশী পর্যটক প্রিয় ‘পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটা’ এখন পর্যটক শূন্যতায় সুনশান নীরবতা পরিবেশ বিরাজ করছে। অনির্দৃষ্ট কালের জন্য বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে শতাধিক হোটেল-মোটেল। পর্যটকদের বাধ্য করা হচ্ছে কুয়াকাটা ত্যাগে। করোনা প্রতিরোধে সর্বোচ্চ সতর্কতার জন্য কুয়াকাটা পর্যটন এলাকাসহ কলাপাড়ার সকল হোটেল-মোটেল বন্ধের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। বুধবার রাত আট টায় কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মুনিবুর রহমান সরকারের দেওয়া এসব নির্দেশনা পালনের জন্য মাইকিং করেছেন। হোটেল মালিকদের পর্যটক ভ্রমন বন্ধে বৃহস্পতিবার থেকে নতুন হোটেল বুকিং বন্ধের নির্দেশনাসহ যারা এখন অবস্থান করছেন তাদের কুয়াকাটা ছাড়তে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কুয়াকাটা ট্যুরিস্ট পুলিশের উদ্যোগে বুধবার বিকেলে এমন নির্দেশ সংবলিত মাইকিং করা হয়েছে। এছাড়া বর্তমান (মার্চ) মাসে বিদেশ ভ্রমন করেছেন, বিদেশ থেকে ফিরেছেন এমন ১২৬ জনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখার জন্য কঠোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে সাতজন ভারতীয় নাগরিক ও একজন ব্রিটিশ নাগরিক রয়েছেন। কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতে প্রত্যেকটি ইউনিয়নে একজন করে তদারকি কর্মকর্তা নিযুক্ত করা হয়েছে। এসব কর্মকর্তাদের নিয়ে বুধবার রাত আট টায় উপজেলা পরিষদ দরবার হলে জরুরি সভা করে করোনা প্রতিরোধে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। প্রত্যেক ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, সচিব, চৌকিদার দফাদারদের বিদেশ ফেরত কিংবা ভ্রমন করা বাসিন্দাদের কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে কঠোর পদক্ষেপ দেওয়া হয়েছে।
ইতোমধ্যে আগের চারজনসহ ১০১ জনের কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার কথা জানালেন ইউএনও মুনিবুর রহমান। প্রয়োজনে মোবাইল কোর্ট করে কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা হবে বলে প্রশাসনের পক্ষ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। মোট কথা উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ, পুলিশ প্রশাসন করোনা প্রতিরোধে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিয়েছে। সরকারের এমনসব উদ্যোগে সাধারণ মানুষকে উদ্বিগ্ন দেখা গেছে। উৎকন্ঠায় পড়েছেন তারা। তবে এতো কিছুর পরও বিদেশ ভ্রমন করা এবং বিদেশ ফেরত কয়েকজনকে স্বাভাবিকভাবে ঘোরাফেরা করার অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা। অপরদিকে কলাপাড়া হাসপাতালের দুই শয্যার করোনা ইউনিটকে পাচ শয্যায় উন্নীতের পদক্ষেপ নেওয়ার কথা স্বাস্থ্য বিভাগ সুত্র নিশ্চিত করেছে।
এছাড়া বৃহস্পতিবার পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সতর্ক থেকে কাজ করার অনুরোধ জানিয়েছেন বাংলাদেশ-চায়না পাওয়ার কোম্পানী লিমিটেড (বিসিপিসিএল) কর্তৃপক্ষ। করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলায় এ সতর্কতা গ্রহন করেছে বলে কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছেন। সতর্ক নির্দেশনার প্রদানের আগে বিসিপিসিএল সম্মেলন কক্ষে আলাদা দুটি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিসিপিসিএলের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মিথুন মাহালী, উপ-সহকারী প্রকৌশলী জর্জিস তালুকদার, চিকিৎসা কর্মকর্তা জিসান উল আবীর, ব্যবস্থাপক (ফ্যাসিলিটিজ) শহীদ উল্যাহ ভূঁইয়া, সহকারী ব্যবস্থাপক শাহ মনি জিকো প্রমুখ কর্মকর্তাবৃন্দ।
বিসিপিসিএলের সহকারী ব্যবস্থাপক শাহ মনি জিকো বলেন, ‘তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ভিতরে এক হাজার ২০০ চীনা নাগরিক এবং তিন হাজারের বেশি দেশীয় শ্রমিক কাজ করছে। করোনা পরিস্থিতির কারণে তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র এলাকায় বাইরের দর্শনার্থীর প্রবেশাধিকার নিয়ন্ত্রন করা হয়েছে। বিদ্যুৎ কেন্দ্রের অভ্যন্তরে যাঁরা কাজ করছে, তাঁদেরকেও বাইরে যেতে নিষেধ করে দেয়া হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত এমন সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে। তবে এ নিয়ে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উন্নয়ন কাজে কোনো প্রভাব পড়বেনা।’
এদিকে বরিশালের বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কলাপাড়া উপজেলার বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, ইউপি চেয়ারম্যান, বিভিন্ন মসজিদের ইমামদের সাথে কথা বলেছেন। বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টার সময় কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মুনিবুর রহমান কলাপাড়া উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষ থেকে বিভাগীয় কমিশনারের সাথে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হন। ইউএনও মুনিবুর রহমান বলেন, যাঁরা ইতিমধ্যে বিদেশ থেকে ফিরেছে তাঁদের সনাক্ত করে হোম কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করা, দ্রব্য মূল্য নিয়ন্ত্রন করা, চায়ের দোকান-রেস্তরায় ভিড় কমানো, কোচিং ব্যবস্থা বন্ধ, অভিভাবক ছাড়া শিশু সন্তানরা যাতে রাস্তায় বের না হয় সে ব্যাপারে সকলকে সচেতন করতে বিভাগীয় কমিশনার নির্দেশ দিয়েছেন।কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ইউএইচএফপিও) চিন্ময় হাওলাদার বলেন, কলাপাড়ায় মার্চ মাসের শুরু থেকে এ পর্যন্ত ১২৬ জন নারী-পুরুষ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে ফিরেছেন। তাঁদের মধ্য থেকে ১৮ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT