বৈশাখকে কেন্দ্র করে বাড়ছে ইলিশের মূল্য সিন্ডিকেটের অভিযোগ ক্রেতাদের! | | ajkerparibartan.com বৈশাখকে কেন্দ্র করে বাড়ছে ইলিশের মূল্য সিন্ডিকেটের অভিযোগ ক্রেতাদের! – ajkerparibartan.com
বৈশাখকে কেন্দ্র করে বাড়ছে ইলিশের মূল্য সিন্ডিকেটের অভিযোগ ক্রেতাদের!

3:02 pm , March 27, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ প্রতি বছরের ন্যায় এবারেও পহেলা বৈশাখকে ঘিরে ইলিেেশর মূল্য বৃদ্ধি পাচ্ছে। অভায়াশ্রম এলাকায় মৎস্য শিকার নিষিদ্ধ থাকার পাশাপাশি পহেলা বৈশাখকে কেন্দ্র করে পাইকারী ব্যাবসায়ীদের মজুদের কারনে বর্তমানে বাজার দরের তুলনায় ইলিশের মূল্য দ্বিগুন বৃদ্ধি পেয়েছে। ১লা বৈশাখের সময় ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে এ মূল্য অরো কয়েকগুন বৃদ্ধি পাবে বলে জানিয়েছেন নগরীর পোর্ট রোড এলাকার পাইকারী ইলিশ ব্যাবসায়ীরা। ইলিশের অন্যান্য মোকামগুলোতেও পাইকারী ব্যাবসায়ীরা মজুদ আরম্ভ করায় সরবরাহ কমে গিয়ে মূল্যবৃদ্ধির হার আরো উর্দ্ধমূখী হচ্ছে। বরিশাল সদর উপজেলার চন্দ্রমোহন এলাকার পাইকারী ইলিশ ব্যাবসায়ী সালাম রাড়ী জানান,বর্তমানে নদীতে একসঙ্গে ২টি অভিযান চলছে।সাধরনত যে সকল স্থানে বড় ইলিশ ধরা পরত সেখানে এবার অভায়াশ্রম ঘোষনা করায় এপ্রিল মাস পর্যন্ত সকল ধরনের মৎস্য আহরনে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। পাশাপাশি জাটকা ইলিশ রক্ষা কর্মসূচীর কারনে নভেম্বর থেকে জুন পর্যন্ত ইলিশ আহরন নিষিদ্ধ ।এরফলে প্রতিবারের তুলনায় এবারে ইলিশের আহরন কিছুটা কম। খুচরা বাজারে এর প্রভাব আরম্ভ হয়েছে।পাশাপাশি বৈশাখ উপলক্ষে মোকাম থেকে ঢাকায় সরাসরি ইলিশ সরবরাহ করা হচ্ছে । এরফলে স্থানীয় বাজারে ইলিশের মূল্য বৃদ্ধি পাচ্ছে।
নগরীর পোর্ট রোড সহ বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে সপ্তাহের ব্যাবধানে ইলিশের খুচরা মূল্য কেজিপ্রতি ১৫০ টাকা থেকে ৪০০ টাকা পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে। ১লা বৈশাখ ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে এ মূল্য কেজি প্রতি ৩০০ টাকা থেকে ১ হাজার টাকা পর্যন্ত বৃদ্ধি পাবে বলে জানান ব্যাবসায়ীরা। বর্তমানে ৫’শ গ্রাম ওজনের ইলিশ প্রতিকেজি পূর্বের মূল্য ৪০০ টাকা থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ৫৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ৭’শ থেকে ৯’শ গ্রামের ইলিশ প্রতিকেজি ৬০০ টাকা থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ৮০০ থেকে ৮৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।একইভাবে এক কেজি ওজনের ইলিশ ১ হাজার টাকা থেকে বেরে ১৩’শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।ব্যাবসায়ীরা জানান,প্রতিবছর ১লা বৈশাখকে কেন্দ্র করে অন্তত ২০ দিন আগে থেকেই মজুদ আরম্ভ হয়ে থাকে। এবার ইতিমধ্যে পাইকারী ব্যাবসায়ীরা মজুদ আরম্ভ করে দেয়ায় মূল্য বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রতি বছরের তুলনায় এবার একযোগে ২টি অভিযান চলার কারনে ইলিশের সরবরাহ কিছুটা কম এবং মূল্য বৃদ্ধির হার পূর্বের তুলনোয় বেশী হতে পারে বলেও জানান একাধিক ব্যবসায়ী।
এদিকে মূল্যবৃদ্ধির কারনে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে ক্রেতারা। গতকাল সকালে নগরীর বাংলাবাজারে একাধিক ইলিশ ক্রেতা জানান, ১লা বৈশাখ মানেই ইলিশ ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট তৈরী হওয়া । এটা প্রতি বছর করা হলেও প্রশাসন কোন ইলিশের আড়তে এখন পর্যন্ত অভিযান চালায়নি। ফলে ব্যবসায়ীরা ইলিশ মজুদ করে কৃত্তিম সংকট তৈরী করছে । এটা অবৈধ এবং অন্যায়। বাজার মনিটরিং না থাকার কারনে ব্যসায়ীরা ইচ্ছামত মূল্যবৃদ্ধি করছে। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে অসাধূ ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় আনার দাবী জানান তারা।
ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তরের বরিশাল কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক শাহ মোঃ শোয়াইব মিয়া বলেন, যেকোন ব্যবসায়ীকে পন্য বিক্রি করতে হলে পূর্বে মূল্য তালিকা নির্ধারন করে তা প্রকাশ্যে টাঙ্গিয়ে রাখতে হবে। কিন্তু এটা কেউ মানছে না। এরফলে অনেক সময় ভোক্তারা প্রতারিত হচ্ছে। এছাড়া বাজারে যে মূল্য তালিকার যে বোর্ডগুলো রয়েছে সেখানে নিয়মিত মূল্য তালিকা হালনাগাদ করা হয়না। এরফলে আমরাও অনেক সময় অভিযান পরিচালনা করতে পারিনা। মৎস্য কর্মকর্তা (ইলিশ)বিমল চন্দ্র দাশ বলেন,১লা বৈশাখকে কেন্দ্র করে ইলিশের চাহিদা বেড়েছে । এরফলে মাছের মূল্যও বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিন্তু ১লা বৈশাখকে পুজি করে অতিরিক্ত মূল্যবৃদ্ধি করে ক্রেতাদের জিম্মি করাটা অনৈতিক।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT