কলাপাড়ায় ইয়াবা সেবীর বিরুদ্ধে এক সন্তানের জননীকে অপহরণ ও রাতভর ধর্ষনে মামলা | | ajkerparibartan.com কলাপাড়ায় ইয়াবা সেবীর বিরুদ্ধে এক সন্তানের জননীকে অপহরণ ও রাতভর ধর্ষনে মামলা – ajkerparibartan.com
কলাপাড়ায় ইয়াবা সেবীর বিরুদ্ধে এক সন্তানের জননীকে অপহরণ ও রাতভর ধর্ষনে মামলা

2:41 pm , January 23, 2020

কলাপাড়া প্রতিবেদক ॥ গভীর রাতে ইয়াবা সেবন করে এক সন্তানের জননীকে অপহরণ করে নিয়ে রাতভর ধর্ষনের ঘটনায় কলাপাড়া থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার ধানখালী ইউনিয়নের লোন্দা গ্রামে গত শনিবার রাতে গার্মেন্টস শ্রমিক ওই নারী স্থানীয় শীর্ষ সন্ত্রাসী পালাশ মোড়ল কর্তৃক ধর্ষনের শিকার হয় বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে। এঘটনায় রবিবার কলাপাড়া থানায় নির্যাতনের শিকার ওই নারীর মাতা বাদি হয়ে পলাশ মোড়লকে প্রধান আসামী করে। এছাড়া মামলার অন্যান্য আসামীরা হচ্ছে নকিব দেওয়ান, দোলন গাজী এবং পলাশ মোড়লের স্ত্রী শিল্পী বেগম। সরেজমিন গিয়ে জানাগেছে, ধানখালী ইউনিয়নের লোন্দা গ্রামে নির্মানাধীন ‘পটুয়াখালী তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের’ নিকটস্থ দারিদ্র অধ্যুষিত এলাকায় ঝুপড়ি ঘরে নির্তাতিত নারীর পিতা মাতার বসবাস। ওই গ্রামের সকল দরিদ্র পরিবারের মতো নির্তাতিতার পিতা-মাতাও সন্ত্রাসী মোড়ল বাহিনীর অত্যাচার ও নির্যাতনে টতস্থ। তার ধারাবাহিকতায় মোড়লের স্ত্রী শিল্পী বেগম স্বামীর ধর্ষনের ঘটনা ধামাচাপাদিতে নির্যাতিতা পরিবারের সদস্যদের হুমকি প্রদান করে এবং নির্যাতিতাকে গ্রাম ছেড়ে যেতে বাধ্য করে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছু একাধিক গ্রামবাসী জানায়, শুক্রবার ঢাকা থেকে বাবা-মায়ের কাছে বেড়াতে আসে স্বামী পরিত্যাক্ত ওই নির্যাতিতা নারী। পিতার ঘরে অন্যান্য মেহমান আসলে শনিবার রাতে নির্যাতিতা নারী বাড়ির নিকটস্থ দাদির বাড়ি ঘুমাতে যায়। গভীর রাতে পলাশ মোড়ল ওই ঘরে প্রবেশ করে নির্যাতিতা ঘুমাতে দেখে। এরপর সে ইয়াবা সেবন করে ঘরের সকলকে ধারালো ছুড়ি এবং নানা ভয়ভিতি দেখিয়ে ওই নারীকে তুলে নিয়ে যায়। রাতভর ধর্ষণ শেষে ভোরে দাদির বাড়িতে পৌছেদেয় পলাশ মোড়ল। এঘটনা প্রকাশ হলে বুধবার দুপুরে পুলিশ খবর পেয়ে ধর্ষীতার মাকে সন্ত্রাসী পলাশ মোড়লের আনুগত্য বাহিনীর জিম্মিদশা থেকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসলে। এরপ সে চার জনকে আসামী করে একটি ধর্ষন মামলা দায়ের করার পর নকিব নামের এক মামলার আসামীকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
নির্যাতিতা ওই নারী জানান, তিনি একজন গার্মেন্টস কর্মী ঢাকা থেকে নিজ বাড়িতে মায়ের কাছে বেড়াতে এসেছিলেন। ঘটনারদিন শনিবার (১৮ জানুয়ারী) রাতে নিজ ঘরে ঘুমানোর যায়গা সংকট থাকায় পার্শ্ববর্তী দিদির ঘরে ঘুমাতে যান। ধর্ষক পলাশ মোড়ল সেখানে গিয়ে অস্ত্রের মুখে সবাইকে জিম্মি করে প্রথমে ওই ঘরে বসেই ইয়াবা সেবন করে। পরে গলায় ছুড়ি ধরে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে একটি বাগানে নিয়ে বিবস্ত্র করে রাতভর নির্যাতন চালায় পলাশ। ভোর রাতে ফের ওই বাড়িতে রেখে কাউকে এ খবর না জানানোর জন্য খুনের হুমকি দেয়া হয়। এক পর্যায় তাকে ঢাকায় যেতে বাধ্য করা হয়।
এব্যাপারে ধানখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. রিয়াজ তালুকদার জানায়, পলাশ নানা অপকর্মের সঙ্গে জড়িত। এই পলাশ পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশের ওপর হামলার সঙ্গে জড়িত। সে স্থানীয় দরিদ্র এবং অভাবী মানুষদের জিম্মি করে নানা অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। তার দ্বার সকল অপকর্ম এবং জঘন্য কাজ করা অস্বাভাবিক কিছুনা। আমরা পলাশের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই সে এই স্বামী পরিত্যাক্তা নারীকে ধর্ষন মামলা থেকে রেহাই না পায়।
কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম জানান, এঘটনায় একটি ধর্ষন মামলা দায়ের হয়েছে। মামলার এক আসামী গ্রেফতার হয়েছ। অন্যান্যদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যহত রয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT