মাইক্রোবাসের দখলে নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বর | | ajkerparibartan.com মাইক্রোবাসের দখলে নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বর – ajkerparibartan.com
মাইক্রোবাসের দখলে নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বর

3:19 pm , January 18, 2020

 

সাঈদ পান্থ \ ফের নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের চত্বর দখল করেছে রেন্ট-এ কার ব্যবসায়ীরা। রক্ষণাবেক্ষণ ও মাদকসেবীদের আড্ডার কারণে ভাবগাম্ভীর্যতা হারাচ্ছে শহীদ মিনার। নষ্ট হচ্ছে ভাষা আন্দোলনের স্মৃতিবিজড়িত এ স্থান। সুশীল সমাজের দাবি, অবিলম্বে শহীদ মিনারের সুরক্ষা ও সংরক্ষণ জরুরি। জেলা প্রশাসন জানিয়েছে, বিষয়টি তাদের নজরে এসেছে, খুব শিগগিরই এ শহীদ মিনার এলাকার দৃশ্যমান পরিবর্তন ঘটবে।
বরিশাল কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ঘুরে দেখা গেছে, শহীদ মিনারের পাশেই গড়ে উঠছে একটি ভবন। যার জন্য শহীদ মিনার এলাকার সৌন্দর্য্য হারিয়ে যাচ্ছে। শহীদ মিনারের মাঠে মাইক্রোবাস ও প্রাইভেট কার রাখা হয়েছে। স্কুল-কলেজের ছাত্ররা শহীদ মিনারে উঠে বা এর পেছনে গিয়ে সিগারেট খায়। কথা হয় সেখানকার এক কলেজ ছাত্রের সঙ্গে। তিনি জানান, এখানে তারা বন্ধুরা প্রায়ই আড্ডা দিতে আসেন। শহীদ মিনারের মাঠে বসেই গাড়িগুলোর ধোয়ামোছা করা হয়। বরিশাল কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এভাবে রেন্ট-এ কার রাখার বিষয়ে নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক চালক জানান, তার মালিক এখানে রাখতে বলছেন, তাই এখানেই রাখা হয়। এছাড়া কেউ তো কোনদিন বাধাঁও দেয়নি। কেউ অভিযোগ করলে আমরা সরিয়ে নেব।
বাসযোগ্য বরিশাল নগর সুরক্ষা কমিটি জানিয়েছে, শহীদ মিনারটি অরক্ষিত অবস্থায় রয়েছে। আর মিনারটির কোল ঘেঁষে নির্মাণ করা হচ্ছে একটি ভবন। রয়েছে রেন্ট-এ কার ব্যবসায়ীদের অত্যাচার। মিনারের পাদতলে গাড়ির গ্যারেজ বানিয়ে ফেলেছেন তারা। তিনি বলেন, শহীদ মিনার সংরক্ষণ কমিটি থাকলেও তাদের কোনো কার্যক্রম না থাকায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। এ বিষয়ে সংশিøষ্টদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।
সাংবাদিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব এ্যাড. এসএম ইকবাল জানান, শহীদ মিনারের মাঠে এক সময় রেন্ট-এ কারের গাড়ী ছিল। তা আমরা সমন্বয় পরিষদ বন্ধ করে দিয়েছিলাম। কিন্তু এখন আবার সামনে থেকে ভেঙ্গে ঢুকছে। এ বিষয়ে খুব দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য দাবী জানাচ্ছি। পাশাপাশি মাদকসেবিনা যেন এই শহীন মিনারের পিছনে গিয়ে মাদকসেবন না করতে পারে সে ব্যাপারেও পুলিশ প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাড. মানবেন্দ্র বটব্যাল জানান, ‘আমি এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই। শহীদ মিনারের ডান পাশে যেভাবে আটকে দিয়ে রেন্ট-এ কারের গাড়ী ঢুকতে দেয়া হয় না, তেমনি সামনের গেইটটিতে কয়েকটি পিলার লাগিয়ে দিলে আর গাড়ী ঢুকতে পারবে না।’
শিÿক সমিতি বরিশাল জেলা কমিটির সভাপতি মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, কোন ক্রমে এমন কাজ গ্রহন যোগ্য নয়। এরা শুধু শহীদ মিনার নয়, সড়ক দখল করে তারা গাড়ী গুলো রাখছেন। এসব বিষয় কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানাচ্ছি শিÿক সমিতির পÿ থেকে। বরিশালের ২৭টি সংগঠনের জোট সাংস্কৃতিক সংগঠন সমন্বয় পরিষদের সভাপতি কাজল ঘোষ বলেন, ‘এ ঘটনার আমরা তিব্র নিন্দা জানাচ্ছি। শহীদ মিনার একটি পবিত্র স্থান। এটাই জাতীয়তাবাদের মূল স্থান। এখানে গাড়ি পার্কিং বা অন্য যে কোন অনিয়ম দুর করতে সমন্বয় পরিষদ প্রস্তুত। প্রয়োজনে আমরা আন্দোলন মুখি হবে।’
এব্যাপারে জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান জানান, গণপূর্ত বিভাগের সহযোগিতায় শহীদ মিনার এলাকায় গাড়ি প্রবেশ করতে না পারে তার ব্যবস্থা করা হবে। বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। খুব দ্রæত দৃশ্যমান পরির্বতন ঘটবে বলে জেলা প্রশাসক জানান।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT